নাহ! আজকের সকল দালাল বলেন আর রাজাকারি কিংবা নিরপেক্ষ অথবা নাস্তিক সাপোর্টার সকল পত্রিকাই কেন যেন খুব নিরপেক্ষ হয়ে গিয়েছে বলে মনে হল। তাই টি.ভি. চালিয়ে বসলাম, টি.ভি. চালু হতেই আমি হতবাগ! এ কি দেখছি আমি? চ্যানেল ৭১ দেখাচ্ছে মোল্লা, অশিক্ষত কিংবা জংগিদের ( ঐ সকল মেডিয়ার ভাসায় হুজুর কিংবা ইনারা বেশির ভাগ সময়ই জংগিবাদ ) আলোচনা? উফ! আমার মনে হল আমি যেন স্বপ্ন দেখছি! নাহ টি.ভি. দেখে আর পোষাবে না বুঝলাম ল্যাপটপ নিয়ে অনলাইনে একটু ভ্রমন করে আসি। অনলাইনের নামি দামি সব এমনকি ইসলাম বিদ্দেশি পত্রিকাগুলয় হুজুরদের দালালি করছে? এটা কি সপ্ন দেখছি? নাকি বাস্তব? বরং বর্তমান সময়ের কিছু মিডিয়া যারা ইসলামের পক্ষে লিখতে গিয়ে বিতর্কিত, তাদের পাতায় এ ধরনের কোন সংবাদি আমার চোখে পরলোনা! আমি তো আরও হতবাগ হয়েগেলাম! এটা কি করে সম্ভব? (দেশের কিছু নামি দামি পত্রিকার হেডলাইন, অপরদিকে 'আমার দেশ" পত্রিকার হেড-লাইন!) আছতে আছতে চোখ থেকে ঘুম যখন সরে যেতে শুরু করল তখন সব কেমন যেন স্পষ্ট হতে শুরু করল? প্রথমেই যে প্রশ্ন মনে আসল ইনারা (হুজুর কিংবা উলামারা) মিছিল করছেন? আপনি ভাবছেন এতে কি সমস্যা মিছিলতো করতেই পারে? হুম্ম আমিও তাই বলছি মিছিলতো করতেই পারে কিন্তু প্রশ্ন যেখানে দুদিন পুর্বেও মিছিল-মিটিং তো দুরের কথা জুমার নামাজে সরিক হতে গিয়ে পুলিশের ধোলাই খেয়েছে, গুলি খেয়েছে অন্তত ২০০-৩০০ জনের বেশি মুসল্লি। সেখানে আজ পল্টনের মত একটা স্থানে রাস্তা বন্ধ করে সসম্মানে পুলিশি নিরাপত্তায় মিছিল-মিটিং করছে? শুরুতে বলতে ইচ্ছে করছিল যে বাহ! কি সুন্দর আমাদের গনতান্ত্রিক ব্যবস্থা , যেখানে হুজুরদের জন্যেও এত সম্মানের ব্যবস্থা রয়েছে। কিন্তু পরক্ষনেই বুজা হয়েগেল যে এটা একটা সাজান নাটক এবং যারা লিখছেন তাদের হাত খুব কাঁচা, অর্থাৎ খুব কাঁচা হাতে লিখা একটা নাটক। সাধারন মানুষ না একটা শিশুও খুব সহজেই বুজতে পারবে এই নাটকটা। (আজকের মঞ্চের কিছু চিত্র।) দ্বিতীয় যে প্রস্ন দেখা দিল মনের মধ্যেঃ যেখানে লক্ষ লক্ষ মানুষ জুমার পর ঢাকা, চট্টগ্রাম কিংবা অন্নান্য শহরে পর পর কয়েক শুক্রুবার জমায়েত হয়েছিল ইসলাম অবমাননাকারীদের বিচার চেয়ে সেইদিন আজকের এই টি.ভি., পত্রিকা বা অনালাইন নিউজ পোর্টালগুল এমন ভাবে উপাশ্তহাপন করে ছিল যেন এরা সবাই জংগি, এরা সবাই রাজাকারের আত্মীয়, এরা বাংলাদেশের সাধিনতা বিরোধী ইত্যাদি। অথচ এই হুজুররাই আজকে এনাদের পাতায় ভাল, ধর্মগুরু। তাহলে কি এই সকল পত্রিকাগুলর সাংবাদিক, সম্পাদক থেকে সকলেই বদলি হয়ে গেলেন রাতা-রাতি? নাকি এই উলামারা সেই উলামা নন? নাকি আজ এই হুজুর-রা হলুদ সাংবাদিকদের পয়সা দিয়ে কিনে নিয়েছেন? (বিগত কয়েক শুক্রুবার সাধারন মুসল্লিদের জমায়েতের কিছু চিত্র।) তৃতীয় যেই প্রশ্নটা চলে আশে তা হচ্ছে প্রতিটি ছবিয় বা ভিডিওই এমন ভাবে ধারন করা হয়েছে যেন মনে হয় হজার-হাজার মানুষ এই উলামাদের সাথে রয়েছে, অথচ বাস্তবে এখন পর্জন্ত কোন প্রতিষ্ঠিত আলেম তো দুরের কথা সাধারন জ্ঞ্যান রাখে ধর্ম সম্পর্কে এরকম মানুষই এটা কে সমর্থন করেনি। মাত্র ২০০-৩০০ মানুশের সমাগম হয়েছে। অথচ এই ২০০-৩০০ জন মানুষকে ৩০,০০০ বানিয়ে দিতেও ভুলে করে নাই অনেক মিডিয়া। দুঃখ জনক হলেও সত্য মেডিয়াগুল কি সাধারন মানুশকে এত টা বোকা মনে করে? (আজকের ছবিগুলো আবার একটু খেয়াল করে দেখুন!) শেষ আবার একটা কথা বলি অনেকেই মনে মনে ঠিক করে রেখেছেন হয়ত বলবেন পুলিশ ওইদিন আঘাত করেছিল উলামা কিংবা সাধারন মুসল্লিদের উপরে নয় জামাতের উপরে তবে আমি বলব শুক্রুবার নামাজের পর প্রায় প্রতিটি আয়োজনি ছিল কওমি দের যাদের জামাতের সাথে কোন সম্পর্ক নেই, বরং এরা জামাত বিরোধী। কিন্তু এদের কে মিডীয়ারা বরাবরের মতই ব্যার্থ ভাবে স্রতাদের কাছে দেশ বিরোধী শক্তি হিশাবে প্রকাশ করার চেষ্টা করেছিল। কিন্তু কতটুকু সফল তারা? আমার মনে হয় ০.০০% সফলতা তারা পেয়েছে। (কিছু মুসল্লির ছবি।) তারা (আজকের এই মিডিয়ারা) কি চায় এমন গুরু হতে যাদের কাছ থেকে সাধারন মানুষ ইসলামও শিখবে আবার ইসলাম বিদ্বেষীও তাদেরই কাছ থেকে শিখতে হবে? আজ তাদের ব্যাপারটা এমন যেন তারাই ঠিক করে দিবে কে ভাল, কে খারাপ, কাকে মানতে হবে, কাকে মানতে হবে না, কাকে মারতে হবে, ইত্যাদি ইত্যাদি। ভুলে গেলে চলবে না মেডিয়ার কাজ জনমত তূলে ধরা, ইচ্ছে মত জনমত তৈরী করা নয়। আর যদি ইচ্ছে মত জনমত তৈরী করে যেতেই থাকে এবং এভাবেই আরও অনেকটা দিন কেটে যায় তবে মনে হয় এই সকল মিডিয়ার সংবাদ দেখা কিংবা পড়ার মানুষ খুজে পেতে কস্ট হবে। এক্সক্লুসিভ স্ট্যাটাস ফানি স্ট্যাটাস ফেসবুক ফলোয়ার ফেসবুক স্ট্যাটাস 

‘আওয়ামী লীগ অতীতে হরতাল করেছে। আমরা সে সময় গাড়ি থেকে যাত্রী নামিয়ে তার পর গাড়িতে আগুন

‘আওয়ামী লীগ অতীতে হরতাল করেছে। আমরা সে সময় গাড়ি থেকে যাত্রী নামিয়ে তার পর গাড়িতে আগুন দিয়েছি, বোমা মেরেছি, ভাঙচুর করেছি। কিন্তু বিএনপি-জামায়াত জোট হলো দানব দল। তারা গাড়ি থেকে যাত্রী না নামিয়ে আগুন দিয়ে, পেট্রলবোমা মেরে মানুষ পুড়িয়ে মারছে।’ -মানিকগঞ্জ-২ আসনের সরকার দলীয় সংসদ সদস্য কণ্ঠশিল্পী মমতাজ বেগম! ‘আওয়ামী লীগ অতীতে হরতাল করেছে। আমরা সে সময় গাড়ি থেকে যাত্রী নামিয়ে তার পর গাড়িতে আগুন দিয়েছি, বোমা মেরেছি, ভাঙচুর করেছি। কিন্তু বিএনপি-জামায়াত জোট হলো দানব দল। তারা গাড়ি থেকে যাত্রী না নামিয়ে আগুন দিয়ে, পেট্রলবোমা মেরে মানুষ পুড়িয়ে মারছে।’ -মানিকগঞ্জ-২…

Read More
budget-managment software ফেসবুক স্ট্যাটাস 

হায়রে অর্থ প্রতিদিনই নতুন করে বুঝতে পারি তোর অর্থ! তোর প্রান নেই, জীবন নেই অথচ তুই কত মানুষের ভালবাসা পাস!

হায়রে অর্থ প্রতিদিনই নতুন করে বুঝতে পারি তোর অর্থ! তোর প্রান নেই, জীবন নেই অথচ তুই কত মানুষের ভালবাসা পাস!   । । Text Source : Mehedi Menafa‘s Facebook Status ফেসবুক স্ট্যাটাস Bangla স্ট্যাটাস Facebook কালেকশন ইংলিশ স্ট্যাটাস এক্সক্লুসিভ স্ট্যাটাস ফানি স্ট্যাটাস ফেসবুক ফলোয়ার ভালবাসার স্ট্যাটাস ভয়ংকর স্ট্যাটাস স্ট্যাটাস কৈশল Bangla স্ট্যাটাস,  ফেসবুক স্ট্যাটাস,  Bangla স্ট্যাটাস,  Facebook কালেকশন,   ইংলিশ স্ট্যাটাস,   এক্সক্লুসিভ স্ট্যাটাস,  ফানি স্ট্যাটাস,   ফেসবুক ফলোয়ার,  ভালবাসার স্ট্যাটাস,  ভয়ংকর স্ট্যাটাস,  স্ট্যাটাস কৈশল , Facebook কালেকশন, FB Symbols, Funny স্ট্যাটাস,  status লিখতে,  আজব স্ট্যাটাস,  ইংলিশ স্ট্যাটাস,  এক্সক্লুসিভ স্ট্যাটাস,  ফানি স্ট্যাটাস,  ফেসবুক…

Read More
inventory management module from bangladesh status লিখতে আজব স্ট্যাটাস ইংলিশ স্ট্যাটাস ফেসবুক স্ট্যাটাস 

প্রতিদিন গোসল করে ঘর থেকে বের হই। সকালে গোসল করে বের হলে সারাদিন একটু ফুরফুরে ….

প্রতিদিন গোসল করে ঘর থেকে বের হই। সকালে গোসল করে বের হলে সারাদিন একটু ফুরফুরে মেজাজে থাকা যায়। এই শহরে যে ধুলো আর ময়লা উড়ে বেড়াচ্ছে বাতাসে, তা প্রতিমুহূর্তে শরীর নোংরা করে ফেলে। তাই রাতে বাধ্য হয়েই ঘড়ে ফিরে আবার গোসল করতে হয়। গোসল এই ধূলার কিছকিছ থেকে সতেজ করে তোলে। আর না হলে রাতে ঘুম ভাল হয় না। কিন্তু আজকে একটু ঠান্ডা ঠান্ডা পরেছে তাই গোসল করতে ইচ্ছে করছিল না। কিন্তু ধূলা-বালির কিছকিছানির জ্বালায় গোসল না করে আর থাকতে পারছিনা। আলসামি না করে গোসল করে নেই না হলে আবার…

Read More
পৃথিবীর প্রথম টেলিভিসনের জনকঃ John Logie Baird পৃথিবীর প্রথম টেলিভিসনের জন্মঃ January 1925 পৃথিবীর প্রথম টেলিভিসনের বাজারজাত হয়ঃ March 1925 পৃথিবীর প্রথম টেলিভিসন চ্যানেলঃ BBC ( January 1929 ) পৃথিবীর প্রথম টেলিভিসনের দেশঃ ইংল্যান্ড, লন্ডন! টেলিভিসন নিয়ে আরও কিছু কথাঃ টেলিভিসন শব্দ বিশ্লেষণঃ Television এবং সংক্ষেপে TV। টেলিভিসনের জনকঃ যদিও John Logie Baird-কে টেলিভিশনের জনক বলা হয় কিন্তু বাস্তবে বর্তমানের আজ টেলিভিসন যে পর্যায় আছে তার পিছনে অনেক অনেক বিজ্ঞানীর অবদান রয়েছে। পৃথিবীর প্রথম টেলিভিশন এবং আজকের টেলিভিশন নিয়ে কিছু কথাঃ বর্তমানের টেলিভিশনের আর পৃথিবীর প্রথম টেলিভিশনের মধ্যে রয়েছে আঁকাস পাতাল পার্থক্য। বর্তমানে পৃথিবীর প্রথম টেলিভিশনের মূল্য দিয়ে এখন নির্ধিধায় একটা টেলিভিশনের কোম্পানি দেওয়া যাবে। তবে প্রথম সব কিছুই প্রথম অর্থাৎ ইতিহাস, তেমনি পৃথিবীর প্রথম টেলিভিশন আবিস্কারের মাধ্যমে পৃথিবীর ইতিহাসে জায়গা করে নিয়েছে বিজ্ঞানী John Logie Baird। তবে বলা বাহুল্য যে পৃথিবীর প্রথম টেলিভিশন আবিস্কারের এই কৃতিত্ত John Logie Baird এর একার নয় বরং তার নামের পাশাপাশি এর দাবীদার রয়েছেন আরও অনেকেরই। একটা সময় দেখা যেত কালার টেলিভিসন কিনলে তার বাসার সামনে লাইন লেগে যেত। তারপর ধীরে ধীরে দেখতে পেলাম সেই সাদাকাল টেলিভিসনগুলো জাদুঘরে ঠাই পেল আর কালার টেলিভিসন এর জয় হল। এর পর আসল ফ্লাট স্ক্রিন। আর এখন চলছে ফ্লাটের পাশাপাশি এইচডি, ল্যাড এবং স্লিমের যুগ। মুছতে শুরু করেছে বক্স টাইপের সেই কালার টেলিভিসনগুলো। কিছুদিনের মধ্যে যে এই বক্স টাইপের টেলিভিসনগুলোও জাদুঘরে চলে যাবে তা আমরা খুব সহজেই বুঝতে পারছি। কিছু দিন পুর্বেই টেলিভিসন মোবাইলও বাজারে খুব পাওয়া যেত আজ তাও আর নেই। মোবাইলে টেলিভিসন এর যুক্ত হওয়াটা ক্রেতারা ভাল ভাবে নেয়নি ফলে টেলিভিসন যুক্ত মোবাইলগুলো খুদ দ্রুতই মার্কেট আউট হয়ে গিয়েছে। তবে 3G কিংবা 4G এর কারনে অনলাইন মোবাইল টিভি স্ট্রিমিং এর চাহিদা দিন দিন বারছে। বিশেষ করে খেলা চলা কালিন সময়, অনলাইন খেলার (SPORTS) টিভি স্ট্রিমিংগুলোর চাহিদা থাকে তুংগে। বর্তমানে আমাদের দেশেরও মোট জনসংখ্যার বিশাল একাটি অংশ মোবাইলেই কর্ম ক্ষেত্রে বা বাড়ীর বাহিরে প্রয়োজনীয় সময় এসকল অনলাইন টিভির সদ্য ব্যবহার করে থাকে। আমাদের দেশে 4G এর আগমন এবং নেট স্পীড আরও ভাল হলে হয়ত বা খুব দ্রুতই সবার হাতে হাতে পৈছে যাবে এসকল অনলাইনে স্ট্রিমিং টিভিগুলো। আর সেদিন হয়ত বা, বর্তমান যুগের এই টেলিভিসনগুলোও জাদুঘরে চলে যাবে। আর সেদিন হয়ত বা আমরা টেলিভিসন বলতে শুধুই পিসি বা হাতের হ্যান্ডস্যাট-কেই চিনব! আশা করি আমার "পৃথিবীর প্রথম টেলিভিসন" লিখাটি ভাল লেগেছে। পরবর্তি পোস্ট নিয়ে খুব দ্রুতই ফিরব। আজ এটুকুই। আমার অনলাইন টিভি স্ট্রিমিং : ASIA CUP 2014 LIVE! | tv.black-iz.com আমার ফেসবুকের ঠিকানা : MEHEDI MENAFA | fb.com/mehedidamenafa ফেসবুক স্ট্যাটাস ভয়ংকর স্ট্যাটাস ভালবাসার স্ট্যাটাস স্ট্যাটাস কৈশল 

তামিম দেখছি সেনচুরির পথে…। জিততে লাগে আর মাত্র ১৪৪ রান!

তামিম দেখছি সেনচুরির পথে…। জিততে লাগে আর মাত্র ১৪৪ রান! । । Text Source : Mehedi Menafa‘s Facebook Status ফেসবুক স্ট্যাটাস Bangla স্ট্যাটাস Facebook কালেকশন ইংলিশ স্ট্যাটাস এক্সক্লুসিভ স্ট্যাটাস ফানি স্ট্যাটাস ফেসবুক ফলোয়ার ভালবাসার স্ট্যাটাস ভয়ংকর স্ট্যাটাস স্ট্যাটাস কৈশল Bangla স্ট্যাটাস,  ফেসবুক স্ট্যাটাস,  Bangla স্ট্যাটাস,  Facebook কালেকশন,   ইংলিশ স্ট্যাটাস,   এক্সক্লুসিভ স্ট্যাটাস,  ফানি স্ট্যাটাস,   ফেসবুক ফলোয়ার,  ভালবাসার স্ট্যাটাস,  ভয়ংকর স্ট্যাটাস,  স্ট্যাটাস কৈশল , Facebook কালেকশন, FB Symbols, Funny স্ট্যাটাস,  status লিখতে,  আজব স্ট্যাটাস,  ইংলিশ স্ট্যাটাস,  এক্সক্লুসিভ স্ট্যাটাস,  ফানি স্ট্যাটাস,  ফেসবুক ফলোয়ার, ভালবাসার স্ট্যাটাস,  ভয়ংকর স্ট্যাটাস, স্ট্যাটাস কৈশল! তামিম দেখছি সেনচুরির পথে…।…

Read More
ফেসবুক ফলোয়ার ফেসবুক স্ট্যাটাস ভয়ংকর স্ট্যাটাস ভালবাসার স্ট্যাটাস 

গুড ওইশ ফর বাংলাদেশ টিম!

কাল ভোর চারটার দিকে শুরু হচ্ছে বাংলাদেশের খেলা। যদিও এবারের বিশ্বকাপ নিয়ে খুব বেশী আগ্রহ ফিল করছি না তারপরও ভেবেছিলাম বাংলাদেশের খেলাটা দেখব। কিন্তু এত ভোরে খেলা দেখব কি করে তাই বুঝতে পারছি না। সকালে না ঘুমালে অফিসে গিয়ে আর কাজ করতে পারিনা তাই কাল মনে হচ্ছে দেখা হবে না বাংলাদেশ আর স্কটল্যান্ডের খেলা। ঘুম থেকে ঊঠে যেন দেখি বাংলাদেশ ভাল কিছু একটা করেছে…। গুড ওইশ ফর বাংলাদেশ টিম! । । Text Source : Mehedi Menafa‘s Facebook Status কাল ভোর চারটার দিকে শুরু হচ্ছে বাংলাদেশের খেলা। যদিও এবারের বিশ্বকাপ নিয়ে…

Read More
সামনেই ১০ম জাতীয় সংসদ নির্বাচন।তাই নির্বাচনকে কেন্দ্র করে মানুষের জল্পনা কল্পনার শেষ নেই।প্রত্যেকেই চায় তার পছন্দের দলটি জয়ী হোক।তাই চলুন দেখি বিগত দিনের নির্বাচনের ফলাফল ও তুলনামুলক বিশ্লেষন। ৯০ এর গণ অভ্যুথনে সৈরশাসনের পতনের পর ১৯৯১ এর নির্বাচনের মাধ্যমে বাংলাদেশ গণতন্ত্রের পথে যাত্রা শুরু করে। তাই ১৯৯১-২০০৮ পর্যন্ত এই চারটি নির্বাচন থেকেই আমরা বিশ্লেষনের স্বার্থে কিছু তথ্য সংগ্রহ করব।আগেই বলে নিই,বাংলাদেশের চারটি প্রধান রাজনৈতিক দলকে নিয়েই আমরা পর্যবেক্ষন করছি। ৯১ এর নির্বাচনে BNP ৩০০, BAL ২৬৪, Jatio party ২৭২ ও jamaat ২২২ আসনে প্রতিদন্দীতা করে যথাক্রমে ১,০৫,০৭,৫৪৯ভোট,১,০২,৫৯,৮৬৬ ভোট,৪০,৬৩,৫৩৭ ভোট ও ৪১,৩৬,৬৬১ ভোট পায় এবং তাদের প্রাপ্ত আসনের সংখ্যা যথাক্রমে ১৪০ টি,৮৮ টি,৩৫ টি ও ১৮ টি। লক্ষ করুন BNP -BAL এর ভোটের ব্যবধান মাত্র আড়াই লাখের মত।তবে কোন দলই একতৃতীয়াংশ আসন না পাওয়ায় জামাতের সমর্থন নিয়ে BNP সরকার গঠন করে।তবে পার্লামেন্টে বিরোধী দলও যথেষ্ট শক্তিশালি ছিল। পরবর্তিতে ১৯৯৬ এর নির্বাচনে BAL, BNP, JATIO PARTY,JAMAAT যধাক্রমে ৩০০,৩০০,২৯৩ ও ৩০০ আসনে নির্বাচন করে যথাক্রমে ১,৫৮,৮২,৭৯২ ভোট,১,৪২,৫৫,৯৮৬ ভোট,৬৯,৫৪,৯৮১ ভোট ও ৩৬,৫৩,০১৩ ভোট পেয়ে ১৪৬ টি,১১৬টি,৩২টি ও ৩টি করে আসন লাভ করে।এবারও এক তৃতীয়াংশ আসন না পাওয়ায় আওয়ামিলীগ জামাত ও জাতীয় পার্টির সমর্থন নিয়ে সরকার গঠন করে।তবে, মজার ব্যাপার হলো পার্লামেন্টে বিরোধীদলের সিট ১১৬টি হওয়ায় তারাও যথেষ্ট শক্তিশালী ছিল। ২০০১ সালের নির্বাচনের প্রেক্ষাপট ছিল একটু ভিন্ন।এই নির্বাচনে বৃহত্তর রাজনৈতিক জোট প্রথা চালু হয়। বিএনপি জামাত আরো দুটি দলকে সাথে নিয়ে চারদলীয় ঐক্যজোট গঠন করে।অন্যদিকে জাতীয় পার্টির এরশাদ মামলার জটে পড়ে এলোমেলো হয়ে যায়।বেশ কয়েকটি ভাগে বিভক্ত হয়ে পড়ে জাতীয় পার্টি।তাই অষ্টম জাতীয় নির্বাচনে জাতীয় পার্টির হিসাব না করাই শ্রেয়। এ নির্বাচনে যথাক্রমে BNP ২৫২ টি, BAL ৩০০ টি, ও JAMAAT ৩১ টি আসনে প্রতিদন্দীতা করে ২,২৮,৩৩,৯৭৮ টি, ২,২৩,৬৫,৫১৬ টি ও ২৩,৮৫,৩৬১ টি ভোট পেয়ে BNP ১৯৩ টি, BAL ৬২ টি, JAMAAT ১৭ টি আসনে জয়ী হয়। অর্থাৎ ভোটের পার্থক্য খুব বেশি না হলেও BNP -BAL এর আসনের পার্থক্য প্রকট হয়ে ওঠে। মূলত ২০০১ সাল থেকেই পার্লামেন্টে বিরোধী দল দূর্বল হওয়া শুরু করে। বিশেষজ্ঞদের মতে জোটের বিপক্ষে একক ভাবে নির্বাচন করতে গিয়েই আওয়ামিলীগ বিপাকে পড়ে যায়। তবে এই নির্মম অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয় ৯ম জাতীয় নির্বাচনে আওয়ামিলীগ ও এরশাদকে সাথে নিয়ে ১৪ দলীয় জোট গঠন করে।ফলে ২০০৮ এর নির্বাচনে লড়াই হয় চারদলীয় জোটের সাথে মহাজোটের। BAL,BNP,JATIO PARTY,JAMAAT যথাক্রমে ২৬৪ টি, ২৬০ টি, ৪৯ টি ও ৩৯ টি আসনে অংশ নিয়ে ৩,৩৬,৩৪,৬২৯ টি, ২,২৭,৫৭,১০১ টি, ৪৯,২৬,৩৬০ টি ও ৩২,৮৯,৯৬৭ টি ভোট পেয়ে যথাক্রমে ২৩০ টি, ৩০ টি, ২৭ টি ও ৩ টি আসনে জয়ী হয়। সবচেয়ে লক্ষনীয় বিষয় হলো BAL-BNP এর ভোটের ব্যবধান প্রায় ১ কোটি ১০ লাখের মত।অনেকেই এটাকে রহস্যজনক বলেছেন।তবে আসলেই রহস্য কি না তা আমরা পরবর্তি অংশে আলোচনা করব। একটি বিষয় খুব অবাক করে তা হল যুদ্ধাপরাধ ইস্যুতে জামাতকে যখন মানুষের কাছে পঁচিয়ে ফেলা হয়েছিল ঠিক তখনই জামাত মাত্র ৩৯ টি আসনে নির্বাচন করে ৩৩ লাখের মত ভোট পেল। এবং ৩৬ টি আসনে বিএনপির চাইতেও বেশি প্রতিদন্দীতা করল।যাইহোক,সামনের দিকে আমরা এসব বিষয়ের বিভিন্ন সমালোচনা ও আলোচনার মাদ্ধমে আগামি নির্বাচনের পাথেয় খোজাব চেষ্টা করব। ( পার্ট ২ এ নজর রাখুন) এক্সক্লুসিভ স্ট্যাটাস ফানি স্ট্যাটাস ফেসবুক ফলোয়ার ফেসবুক স্ট্যাটাস 

‘খালেদার স্বপ্ন ছিল বোম্বের নায়িকা হবার’: নৌমন্ত্রী

‘খালেদার স্বপ্ন ছিল বোম্বের নায়িকা হবার’: নৌমন্ত্রী     । । Text Source : Mehedi Menafa‘s Facebook Status   ফেসবুক স্ট্যাটাস Bangla স্ট্যাটাস Facebook কালেকশন ইংলিশ স্ট্যাটাস এক্সক্লুসিভ স্ট্যাটাস ফানি স্ট্যাটাস ফেসবুক ফলোয়ার ভালবাসার স্ট্যাটাস ভয়ংকর স্ট্যাটাস স্ট্যাটাস কৈশল Bangla স্ট্যাটাস,  ফেসবুক স্ট্যাটাস,  Bangla স্ট্যাটাস,  Facebook কালেকশন,   ইংলিশ স্ট্যাটাস,   এক্সক্লুসিভ স্ট্যাটাস,  ফানি স্ট্যাটাস,   ফেসবুক ফলোয়ার,  ভালবাসার স্ট্যাটাস,  ভয়ংকর স্ট্যাটাস,  স্ট্যাটাস কৈশল , Facebook কালেকশন, FB Symbols, Funny স্ট্যাটাস,  status লিখতে,  আজব স্ট্যাটাস,  ইংলিশ স্ট্যাটাস,  এক্সক্লুসিভ স্ট্যাটাস,  ফানি স্ট্যাটাস,  ফেসবুক ফলোয়ার, ভালবাসার স্ট্যাটাস,  ভয়ংকর স্ট্যাটাস, স্ট্যাটাস কৈশল! ‘খালেদার স্বপ্ন ছিল বোম্বের…

Read More
পর্দার পেছনের ঘটনা ফেসবুক স্ট্যাটাস সমস্যা পরামর্শ সমাধান 

হরতাল, অবরোধ, ক্রস ফায়ার, বন্ধুক যুদ্ধ, অপ মৃত্যু, খুন, গুম এবং সাধারন আমি ও আমরা!

হরতাল, অবরোধ, ক্রস ফায়ার, বন্ধুক যুদ্ধ, অপ মৃত্যু, খুন, গুম এবং সাধারন আমি ও আমরা! আজ আমাদের চারিদেক জুড়ে শুধুই হরতাল, অবরোধ, ক্রস ফায়ার, বন্ধুক যুদ্ধ, অপ মৃত্যু, খুন, গুম, গ্রেরেপ্তার, কক্টেল আর পেট্রোল বোম এর দেখা মিলে। কিন্তু তারপরও আমাদের মত সাধারন মানুষ যারা দিন আনি দিন খাই তাদের হাজার আতংক আর জীবনের ভয় নিয়ে ঘড়ের বাহিরে রুজি-রোজগারের আশায় বের হতেই হচ্ছে। সারাদিনের পরিস্রমের পর ঘড়ে ফিরে সংবাদগুলোর দেখা পাই।   . সেখানে দেখা মিলে আমাদের মতই কিছু মানুষ আজ আগুনে পুড়ে গ্রিল হয়ে গিয়েছে কিংবা কথিত বন্দুক যুদ্ধের…

Read More
সার সার সুন্দরীরা লাইন করে দাঁড়িয়ে রয়েছেন। কেউ রূপচর্চা করছেন। কেউ আবার পোশাক-আশাকের সাথে সোনার গহনাগুলি আরেকবার করে ঠিক করে নিচ্ছেন। ফেসবুক স্ট্যাটাস ভয়ংকর স্ট্যাটাস ভালবাসার স্ট্যাটাস স্ট্যাটাস কৈশল 

সুন্দরী বউয়ের হাট! অবাক হচ্ছেন এটাও কি সম্ভব!

সুন্দরী বউয়ের হাট! অবাক হচ্ছেন এটাও কি সম্ভব! সার সার সুন্দরীরা লাইন করে দাঁড়িয়ে রয়েছেন। কেউ রূপচর্চা করছেন। কেউ আবার পোশাক-আশাকের সাথে সোনার গহনাগুলি আরেকবার করে ঠিক করে নিচ্ছেন।     সার সার সুন্দরীরা লাইন করে দাঁড়িয়ে রয়েছেন। কেউ রূপচর্চা করছেন। কেউ আবার পোশাক-আশাকের সাথে সোনার গহনাগুলি আরেকবার করে ঠিক করে নিচ্ছেন। । । Text Source : Mehedi Menafa‘s Facebook Status ফেসবুক স্ট্যাটাস Bangla স্ট্যাটাস Facebook কালেকশন ইংলিশ স্ট্যাটাস এক্সক্লুসিভ স্ট্যাটাস ফানি স্ট্যাটাস ফেসবুক ফলোয়ার ভালবাসার স্ট্যাটাস ভয়ংকর স্ট্যাটাস স্ট্যাটাস কৈশল Bangla স্ট্যাটাস,  ফেসবুক স্ট্যাটাস,  Bangla স্ট্যাটাস,  Facebook কালেকশন,   ইংলিশ স্ট্যাটাস,  …

Read More
Bangla স্ট্যাটাস Facebook কালেকশন FB Symbols ফেসবুক স্ট্যাটাস 

ধর্ম বিদ্বেষী কিংবা ধর্মকে আক্রমণ করে লিখা-লিখি!

ধর্ম বিদ্বেষী কিংবা ধর্মকে আক্রমণ করে লিখা-লিখির মধ্যে কোন মুক্ত মনার প্রকাশ ঘটে না। আছে নিজেকে বিতর্কিত তারকা বানানোর চেষ্টা, আছে ভিন দেশী ইয়াহুদিদের এজেন্ট হিশাবে কাজ করে মানুষের মধ্যে ভিবেদ সৃস্টি করার অপ চেস্টা। একজন প্রকৃত সুস্থ মস্তিষ্কের মানুষ কখনোই ধর্মের বিরোধিতা করে নিজেকে বিতর্কিত বানানোর চেস্টায় লিপ্ত থাকেন না। । । থাকেন তারাই, যারা যে কোন মূল্যে নাম কেনার জন্য, নিজেকে নিরাপদ প্রবাসী বানানোর জন্য আর কোন হাতিয়ার পান না তারা। ব্লগে বা ফেসবুকে যারা ধর্মকে আক্রমণ করে লেখে নিজেদের তারকা বানাতে চান, তারা কখনোই প্রকৃত মানুষ তথা…

Read More
বৃষ্টির কারনে কাল বাংলাদেশ খেলতে পারবে কিনা তা নিয়ে সবার মনে যথেস্ট পরিমান সংশয় রয়েছে। বেশীর ভাগই চাচ্ছে না খেলে ড্র হয়ে অন্তত এক পয়েন্ট পেলেই ভাল। কিন্তু ক্যাপ্টেন মাশরাফি ভাবছেন ভিন্ন "না খেলে এক পয়েন্ট নয় বরং খেলে জীতে দুই পয়েন্ট নেওয়ার কথা!" ফেসবুক স্ট্যাটাস ভালবাসার স্ট্যাটাস স্ট্যাটাস কৈশল 

আমাদের এলাকায় একটা পাগলা কুকুর অপঘাতে মারা গেছে!

আমাদের এলাকায় একটা পাগলা কুকুর অপঘাতে মারা গেছে!   আমাদের এলাকায় একটা পাগলা কুকুর অপঘাতে মারা গেছে! কুকুরের মৃত্যুতে সমস্ত কুকুর সমাজ শোকাচ্ছন্ন! আমার এক বন্ধু আমাকে বললো দেখ দেখ মানুষ গুলো কত নিষ্ঠুর কুকুরটাকে এভাবে মেরে ফেললো? আমি কইলাম দোস্ত এই কুকুরটা যখন বেচে ছিলো তখন বিনা কারনে মানুষ কামড়াইতো! মানুষ আর কত সহ্য করবে? দোস্ত কইলো তো কুকুরটার চিকিৎসা করালেই পারতো! আমি কইলাম দোস্ত চিকিৎসা করাবে কে? যে করাইতে যায় সে ই তো কামড় খায়! দোস্ত কইলো তবুও কাজটা ঠিক হয় নাই! এইভাবে কাউকে মেরে ফেলা ঠিক না,…

Read More