ফেসবুককে এক লাখ ইউরো জরিমানা Facebook কালেকশন ফেসবুক ফলোয়ার 

এক লাখ ইউরো জরিমানা ফেসবুক এর

আদালতের আদেশ মানতে দেরি করায় জরিমানা গুনতে হচ্ছে ফেসবুক এর৷ তাই ফেসবুক এর জরিমানা হিসেবে ১ লাখ ইউরো দিতে হচ্ছে জার্মানির আদালতকে৷ ফেসবুক কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, আদালতের আদেশ মেনে জরিমানা দেয়া হবে৷   ফেসবুক ব্যবহারকারীরা সব সময়ই ফেসবুক বা ফেসবুক নেটওয়ার্কের অন্তর্ভুক্ত বিভিন্ন প্ল্যাটফর্মে ছবি, ভিডিও, অডিও কিংবা লেখা ‘পোস্ট’ করে থাকেন৷ এখন যে কোন আইপি অ্যাড্রেস বা একটি কম্পিউটার থেকে পোস্ট করা সমস্ত ‘ইন্টারনেট প্রটোকল কন্টেন্ট’ বা আইপি কন্টেন্ট-এর ওপরই বৈশ্বিক লাইসেন্স নিয়ে বসে আছে ফেসবুক৷ জার্মানির ভোক্তা সংস্থা ‘ভিজেডবিভি’ বিষয়টিকে চ্যালেঞ্জ করে মামলা করেছিল৷ সেই মামলায় ফেসবুক হেরেছে৷ বার্লিনের…

Read More

ই-কমার্স রূপে আসছে ফেসবুক

লাইক,কমেন্ট,শেয়ার- ফেসবুকে যে কোনো পোস্টে সাধারণত এই তিনটি বাটন সকলেই দেখতে পান। এ বার এর সঙ্গে আরও ২টি নতুন বাটন যোগ হতে চলেছে, Want এবং Collect. এভাবেই নিঃশব্দে ই-কমার্সে পা রাখছে ফেসবুক। বরং বলা ভালো ইতিমধ্যেই রেখে ফেলেছে। গতবছর অক্টোবর থেকে পরীক্ষামূলকভাবে এই দু’টি বাটন যোগ করা হয়েছিল। যদিও এই বাটন ফিচার করত বিশ্বের কয়েকটি দেশে। আসলে ১০০ কোটি অ্যাক্টিভ ব্যবহারকারীর এই বিপুল ক্রেতার ভাণ্ডার যে কোনো বিপণন সংস্থার কাছেই লোভনীয় তা নিয়ে সন্দেহ নেই। আর এখানেই বাজিমাত করছে ফেসবুক। ভিক্টোরিয়াস সিক্রেট, ফ্যাব, কর্‌স, ওয়ে ফেয়ার-এর মতো বেশ কিছু সংস্থা…

Read More
ফেসবুক ফলোয়ার 

টুইটার সাজান মনের মত করে, আপনার ইচ্ছা ভাবে ।

ফেসবুক সর্ববৃহৎ সোশ্যাল নেটওয়ার্ক। কিন্তু অনেকে ফেসবুককে ভাল-খারাপ মেশানো বলে এটা থেকে দূরে থাকার চেষ্টা করে। যে কারণে এখন জনপ্রিয় এবং বিখ্যাত ব্যক্তিগুলো টুইটারমুখী।তাছাড়া টুইটার এখন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম হিসেবে খুবই জনপ্রিয়। আপনি যদি অনলাইনমুখী এবং এই সম্পর্কিত কাজ করেন তাহলে আপনার টুইটার প্রোফাইলকে সমৃদ্ধ করা উচিৎ। এজন্য আপনাকে যে অনেক কিছু করতে হবে তা না, দরকার একটু সুনজর। আমরা যেভাবে ফেসবুকে সময় দেই, তার সাথে একটু চেষ্টা করলে টুইটার প্রোফাইলকে অনেক সুন্দর করে নিতে পারি। অনেক সুপরিচিত মানুশকে পাবেন খুবই নিয়মিত টুইট করতে এবং তাদের সাথে একাত্ম হতেও পারবেন…

Read More
নাহ! আজকের সকল দালাল বলেন আর রাজাকারি কিংবা নিরপেক্ষ অথবা নাস্তিক সাপোর্টার সকল পত্রিকাই কেন যেন খুব নিরপেক্ষ হয়ে গিয়েছে বলে মনে হল। তাই টি.ভি. চালিয়ে বসলাম, টি.ভি. চালু হতেই আমি হতবাগ! এ কি দেখছি আমি? চ্যানেল ৭১ দেখাচ্ছে মোল্লা, অশিক্ষত কিংবা জংগিদের ( ঐ সকল মেডিয়ার ভাসায় হুজুর কিংবা ইনারা বেশির ভাগ সময়ই জংগিবাদ ) আলোচনা? উফ! আমার মনে হল আমি যেন স্বপ্ন দেখছি! নাহ টি.ভি. দেখে আর পোষাবে না বুঝলাম ল্যাপটপ নিয়ে অনলাইনে একটু ভ্রমন করে আসি। অনলাইনের নামি দামি সব এমনকি ইসলাম বিদ্দেশি পত্রিকাগুলয় হুজুরদের দালালি করছে? এটা কি সপ্ন দেখছি? নাকি বাস্তব? বরং বর্তমান সময়ের কিছু মিডিয়া যারা ইসলামের পক্ষে লিখতে গিয়ে বিতর্কিত, তাদের পাতায় এ ধরনের কোন সংবাদি আমার চোখে পরলোনা! আমি তো আরও হতবাগ হয়েগেলাম! এটা কি করে সম্ভব? (দেশের কিছু নামি দামি পত্রিকার হেডলাইন, অপরদিকে 'আমার দেশ" পত্রিকার হেড-লাইন!) আছতে আছতে চোখ থেকে ঘুম যখন সরে যেতে শুরু করল তখন সব কেমন যেন স্পষ্ট হতে শুরু করল? প্রথমেই যে প্রশ্ন মনে আসল ইনারা (হুজুর কিংবা উলামারা) মিছিল করছেন? আপনি ভাবছেন এতে কি সমস্যা মিছিলতো করতেই পারে? হুম্ম আমিও তাই বলছি মিছিলতো করতেই পারে কিন্তু প্রশ্ন যেখানে দুদিন পুর্বেও মিছিল-মিটিং তো দুরের কথা জুমার নামাজে সরিক হতে গিয়ে পুলিশের ধোলাই খেয়েছে, গুলি খেয়েছে অন্তত ২০০-৩০০ জনের বেশি মুসল্লি। সেখানে আজ পল্টনের মত একটা স্থানে রাস্তা বন্ধ করে সসম্মানে পুলিশি নিরাপত্তায় মিছিল-মিটিং করছে? শুরুতে বলতে ইচ্ছে করছিল যে বাহ! কি সুন্দর আমাদের গনতান্ত্রিক ব্যবস্থা , যেখানে হুজুরদের জন্যেও এত সম্মানের ব্যবস্থা রয়েছে। কিন্তু পরক্ষনেই বুজা হয়েগেল যে এটা একটা সাজান নাটক এবং যারা লিখছেন তাদের হাত খুব কাঁচা, অর্থাৎ খুব কাঁচা হাতে লিখা একটা নাটক। সাধারন মানুষ না একটা শিশুও খুব সহজেই বুজতে পারবে এই নাটকটা। (আজকের মঞ্চের কিছু চিত্র।) দ্বিতীয় যে প্রস্ন দেখা দিল মনের মধ্যেঃ যেখানে লক্ষ লক্ষ মানুষ জুমার পর ঢাকা, চট্টগ্রাম কিংবা অন্নান্য শহরে পর পর কয়েক শুক্রুবার জমায়েত হয়েছিল ইসলাম অবমাননাকারীদের বিচার চেয়ে সেইদিন আজকের এই টি.ভি., পত্রিকা বা অনালাইন নিউজ পোর্টালগুল এমন ভাবে উপাশ্তহাপন করে ছিল যেন এরা সবাই জংগি, এরা সবাই রাজাকারের আত্মীয়, এরা বাংলাদেশের সাধিনতা বিরোধী ইত্যাদি। অথচ এই হুজুররাই আজকে এনাদের পাতায় ভাল, ধর্মগুরু। তাহলে কি এই সকল পত্রিকাগুলর সাংবাদিক, সম্পাদক থেকে সকলেই বদলি হয়ে গেলেন রাতা-রাতি? নাকি এই উলামারা সেই উলামা নন? নাকি আজ এই হুজুর-রা হলুদ সাংবাদিকদের পয়সা দিয়ে কিনে নিয়েছেন? (বিগত কয়েক শুক্রুবার সাধারন মুসল্লিদের জমায়েতের কিছু চিত্র।) তৃতীয় যেই প্রশ্নটা চলে আশে তা হচ্ছে প্রতিটি ছবিয় বা ভিডিওই এমন ভাবে ধারন করা হয়েছে যেন মনে হয় হজার-হাজার মানুষ এই উলামাদের সাথে রয়েছে, অথচ বাস্তবে এখন পর্জন্ত কোন প্রতিষ্ঠিত আলেম তো দুরের কথা সাধারন জ্ঞ্যান রাখে ধর্ম সম্পর্কে এরকম মানুষই এটা কে সমর্থন করেনি। মাত্র ২০০-৩০০ মানুশের সমাগম হয়েছে। অথচ এই ২০০-৩০০ জন মানুষকে ৩০,০০০ বানিয়ে দিতেও ভুলে করে নাই অনেক মিডিয়া। দুঃখ জনক হলেও সত্য মেডিয়াগুল কি সাধারন মানুশকে এত টা বোকা মনে করে? (আজকের ছবিগুলো আবার একটু খেয়াল করে দেখুন!) শেষ আবার একটা কথা বলি অনেকেই মনে মনে ঠিক করে রেখেছেন হয়ত বলবেন পুলিশ ওইদিন আঘাত করেছিল উলামা কিংবা সাধারন মুসল্লিদের উপরে নয় জামাতের উপরে তবে আমি বলব শুক্রুবার নামাজের পর প্রায় প্রতিটি আয়োজনি ছিল কওমি দের যাদের জামাতের সাথে কোন সম্পর্ক নেই, বরং এরা জামাত বিরোধী। কিন্তু এদের কে মিডীয়ারা বরাবরের মতই ব্যার্থ ভাবে স্রতাদের কাছে দেশ বিরোধী শক্তি হিশাবে প্রকাশ করার চেষ্টা করেছিল। কিন্তু কতটুকু সফল তারা? আমার মনে হয় ০.০০% সফলতা তারা পেয়েছে। (কিছু মুসল্লির ছবি।) তারা (আজকের এই মিডিয়ারা) কি চায় এমন গুরু হতে যাদের কাছ থেকে সাধারন মানুষ ইসলামও শিখবে আবার ইসলাম বিদ্বেষীও তাদেরই কাছ থেকে শিখতে হবে? আজ তাদের ব্যাপারটা এমন যেন তারাই ঠিক করে দিবে কে ভাল, কে খারাপ, কাকে মানতে হবে, কাকে মানতে হবে না, কাকে মারতে হবে, ইত্যাদি ইত্যাদি। ভুলে গেলে চলবে না মেডিয়ার কাজ জনমত তূলে ধরা, ইচ্ছে মত জনমত তৈরী করা নয়। আর যদি ইচ্ছে মত জনমত তৈরী করে যেতেই থাকে এবং এভাবেই আরও অনেকটা দিন কেটে যায় তবে মনে হয় এই সকল মিডিয়ার সংবাদ দেখা কিংবা পড়ার মানুষ খুজে পেতে কস্ট হবে। এক্সক্লুসিভ স্ট্যাটাস ফানি স্ট্যাটাস ফেসবুক ফলোয়ার ফেসবুক স্ট্যাটাস 

‘আওয়ামী লীগ অতীতে হরতাল করেছে। আমরা সে সময় গাড়ি থেকে যাত্রী নামিয়ে তার পর গাড়িতে আগুন

‘আওয়ামী লীগ অতীতে হরতাল করেছে। আমরা সে সময় গাড়ি থেকে যাত্রী নামিয়ে তার পর গাড়িতে আগুন দিয়েছি, বোমা মেরেছি, ভাঙচুর করেছি। কিন্তু বিএনপি-জামায়াত জোট হলো দানব দল। তারা গাড়ি থেকে যাত্রী না নামিয়ে আগুন দিয়ে, পেট্রলবোমা মেরে মানুষ পুড়িয়ে মারছে।’ -মানিকগঞ্জ-২ আসনের সরকার দলীয় সংসদ সদস্য কণ্ঠশিল্পী মমতাজ বেগম! ‘আওয়ামী লীগ অতীতে হরতাল করেছে। আমরা সে সময় গাড়ি থেকে যাত্রী নামিয়ে তার পর গাড়িতে আগুন দিয়েছি, বোমা মেরেছি, ভাঙচুর করেছি। কিন্তু বিএনপি-জামায়াত জোট হলো দানব দল। তারা গাড়ি থেকে যাত্রী না নামিয়ে আগুন দিয়ে, পেট্রলবোমা মেরে মানুষ পুড়িয়ে মারছে।’ -মানিকগঞ্জ-২…

Read More
ফেসবুক ফলোয়ার ফেসবুক স্ট্যাটাস ভয়ংকর স্ট্যাটাস ভালবাসার স্ট্যাটাস 

গুড ওইশ ফর বাংলাদেশ টিম!

কাল ভোর চারটার দিকে শুরু হচ্ছে বাংলাদেশের খেলা। যদিও এবারের বিশ্বকাপ নিয়ে খুব বেশী আগ্রহ ফিল করছি না তারপরও ভেবেছিলাম বাংলাদেশের খেলাটা দেখব। কিন্তু এত ভোরে খেলা দেখব কি করে তাই বুঝতে পারছি না। সকালে না ঘুমালে অফিসে গিয়ে আর কাজ করতে পারিনা তাই কাল মনে হচ্ছে দেখা হবে না বাংলাদেশ আর স্কটল্যান্ডের খেলা। ঘুম থেকে ঊঠে যেন দেখি বাংলাদেশ ভাল কিছু একটা করেছে…। গুড ওইশ ফর বাংলাদেশ টিম! । । Text Source : Mehedi Menafa‘s Facebook Status কাল ভোর চারটার দিকে শুরু হচ্ছে বাংলাদেশের খেলা। যদিও এবারের বিশ্বকাপ নিয়ে…

Read More
সামনেই ১০ম জাতীয় সংসদ নির্বাচন।তাই নির্বাচনকে কেন্দ্র করে মানুষের জল্পনা কল্পনার শেষ নেই।প্রত্যেকেই চায় তার পছন্দের দলটি জয়ী হোক।তাই চলুন দেখি বিগত দিনের নির্বাচনের ফলাফল ও তুলনামুলক বিশ্লেষন। ৯০ এর গণ অভ্যুথনে সৈরশাসনের পতনের পর ১৯৯১ এর নির্বাচনের মাধ্যমে বাংলাদেশ গণতন্ত্রের পথে যাত্রা শুরু করে। তাই ১৯৯১-২০০৮ পর্যন্ত এই চারটি নির্বাচন থেকেই আমরা বিশ্লেষনের স্বার্থে কিছু তথ্য সংগ্রহ করব।আগেই বলে নিই,বাংলাদেশের চারটি প্রধান রাজনৈতিক দলকে নিয়েই আমরা পর্যবেক্ষন করছি। ৯১ এর নির্বাচনে BNP ৩০০, BAL ২৬৪, Jatio party ২৭২ ও jamaat ২২২ আসনে প্রতিদন্দীতা করে যথাক্রমে ১,০৫,০৭,৫৪৯ভোট,১,০২,৫৯,৮৬৬ ভোট,৪০,৬৩,৫৩৭ ভোট ও ৪১,৩৬,৬৬১ ভোট পায় এবং তাদের প্রাপ্ত আসনের সংখ্যা যথাক্রমে ১৪০ টি,৮৮ টি,৩৫ টি ও ১৮ টি। লক্ষ করুন BNP -BAL এর ভোটের ব্যবধান মাত্র আড়াই লাখের মত।তবে কোন দলই একতৃতীয়াংশ আসন না পাওয়ায় জামাতের সমর্থন নিয়ে BNP সরকার গঠন করে।তবে পার্লামেন্টে বিরোধী দলও যথেষ্ট শক্তিশালি ছিল। পরবর্তিতে ১৯৯৬ এর নির্বাচনে BAL, BNP, JATIO PARTY,JAMAAT যধাক্রমে ৩০০,৩০০,২৯৩ ও ৩০০ আসনে নির্বাচন করে যথাক্রমে ১,৫৮,৮২,৭৯২ ভোট,১,৪২,৫৫,৯৮৬ ভোট,৬৯,৫৪,৯৮১ ভোট ও ৩৬,৫৩,০১৩ ভোট পেয়ে ১৪৬ টি,১১৬টি,৩২টি ও ৩টি করে আসন লাভ করে।এবারও এক তৃতীয়াংশ আসন না পাওয়ায় আওয়ামিলীগ জামাত ও জাতীয় পার্টির সমর্থন নিয়ে সরকার গঠন করে।তবে, মজার ব্যাপার হলো পার্লামেন্টে বিরোধীদলের সিট ১১৬টি হওয়ায় তারাও যথেষ্ট শক্তিশালী ছিল। ২০০১ সালের নির্বাচনের প্রেক্ষাপট ছিল একটু ভিন্ন।এই নির্বাচনে বৃহত্তর রাজনৈতিক জোট প্রথা চালু হয়। বিএনপি জামাত আরো দুটি দলকে সাথে নিয়ে চারদলীয় ঐক্যজোট গঠন করে।অন্যদিকে জাতীয় পার্টির এরশাদ মামলার জটে পড়ে এলোমেলো হয়ে যায়।বেশ কয়েকটি ভাগে বিভক্ত হয়ে পড়ে জাতীয় পার্টি।তাই অষ্টম জাতীয় নির্বাচনে জাতীয় পার্টির হিসাব না করাই শ্রেয়। এ নির্বাচনে যথাক্রমে BNP ২৫২ টি, BAL ৩০০ টি, ও JAMAAT ৩১ টি আসনে প্রতিদন্দীতা করে ২,২৮,৩৩,৯৭৮ টি, ২,২৩,৬৫,৫১৬ টি ও ২৩,৮৫,৩৬১ টি ভোট পেয়ে BNP ১৯৩ টি, BAL ৬২ টি, JAMAAT ১৭ টি আসনে জয়ী হয়। অর্থাৎ ভোটের পার্থক্য খুব বেশি না হলেও BNP -BAL এর আসনের পার্থক্য প্রকট হয়ে ওঠে। মূলত ২০০১ সাল থেকেই পার্লামেন্টে বিরোধী দল দূর্বল হওয়া শুরু করে। বিশেষজ্ঞদের মতে জোটের বিপক্ষে একক ভাবে নির্বাচন করতে গিয়েই আওয়ামিলীগ বিপাকে পড়ে যায়। তবে এই নির্মম অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয় ৯ম জাতীয় নির্বাচনে আওয়ামিলীগ ও এরশাদকে সাথে নিয়ে ১৪ দলীয় জোট গঠন করে।ফলে ২০০৮ এর নির্বাচনে লড়াই হয় চারদলীয় জোটের সাথে মহাজোটের। BAL,BNP,JATIO PARTY,JAMAAT যথাক্রমে ২৬৪ টি, ২৬০ টি, ৪৯ টি ও ৩৯ টি আসনে অংশ নিয়ে ৩,৩৬,৩৪,৬২৯ টি, ২,২৭,৫৭,১০১ টি, ৪৯,২৬,৩৬০ টি ও ৩২,৮৯,৯৬৭ টি ভোট পেয়ে যথাক্রমে ২৩০ টি, ৩০ টি, ২৭ টি ও ৩ টি আসনে জয়ী হয়। সবচেয়ে লক্ষনীয় বিষয় হলো BAL-BNP এর ভোটের ব্যবধান প্রায় ১ কোটি ১০ লাখের মত।অনেকেই এটাকে রহস্যজনক বলেছেন।তবে আসলেই রহস্য কি না তা আমরা পরবর্তি অংশে আলোচনা করব। একটি বিষয় খুব অবাক করে তা হল যুদ্ধাপরাধ ইস্যুতে জামাতকে যখন মানুষের কাছে পঁচিয়ে ফেলা হয়েছিল ঠিক তখনই জামাত মাত্র ৩৯ টি আসনে নির্বাচন করে ৩৩ লাখের মত ভোট পেল। এবং ৩৬ টি আসনে বিএনপির চাইতেও বেশি প্রতিদন্দীতা করল।যাইহোক,সামনের দিকে আমরা এসব বিষয়ের বিভিন্ন সমালোচনা ও আলোচনার মাদ্ধমে আগামি নির্বাচনের পাথেয় খোজাব চেষ্টা করব। ( পার্ট ২ এ নজর রাখুন) এক্সক্লুসিভ স্ট্যাটাস ফানি স্ট্যাটাস ফেসবুক ফলোয়ার ফেসবুক স্ট্যাটাস 

‘খালেদার স্বপ্ন ছিল বোম্বের নায়িকা হবার’: নৌমন্ত্রী

‘খালেদার স্বপ্ন ছিল বোম্বের নায়িকা হবার’: নৌমন্ত্রী     । । Text Source : Mehedi Menafa‘s Facebook Status   ফেসবুক স্ট্যাটাস Bangla স্ট্যাটাস Facebook কালেকশন ইংলিশ স্ট্যাটাস এক্সক্লুসিভ স্ট্যাটাস ফানি স্ট্যাটাস ফেসবুক ফলোয়ার ভালবাসার স্ট্যাটাস ভয়ংকর স্ট্যাটাস স্ট্যাটাস কৈশল Bangla স্ট্যাটাস,  ফেসবুক স্ট্যাটাস,  Bangla স্ট্যাটাস,  Facebook কালেকশন,   ইংলিশ স্ট্যাটাস,   এক্সক্লুসিভ স্ট্যাটাস,  ফানি স্ট্যাটাস,   ফেসবুক ফলোয়ার,  ভালবাসার স্ট্যাটাস,  ভয়ংকর স্ট্যাটাস,  স্ট্যাটাস কৈশল , Facebook কালেকশন, FB Symbols, Funny স্ট্যাটাস,  status লিখতে,  আজব স্ট্যাটাস,  ইংলিশ স্ট্যাটাস,  এক্সক্লুসিভ স্ট্যাটাস,  ফানি স্ট্যাটাস,  ফেসবুক ফলোয়ার, ভালবাসার স্ট্যাটাস,  ভয়ংকর স্ট্যাটাস, স্ট্যাটাস কৈশল! ‘খালেদার স্বপ্ন ছিল বোম্বের…

Read More
খাবারের দিক থেকে বিবেচনা করলে ভালই ছিল দিনটা । একত মজার খাবার, তার উপর নিজেদের হাতে রান্না! এক্সক্লুসিভ স্ট্যাটাস ফেসবুক ফলোয়ার ফেসবুক স্ট্যাটাস ভয়ংকর স্ট্যাটাস ভালবাসার স্ট্যাটাস 

খাবারের দিক থেকে বিবেচনা করলে ভালই ছিল দিনটা । একত মজার খাবার, তার উপর নিজেদের হাতে রান্না!

আজকের দিনটা মোটামোটি ভালই গেল, অন্তত খাবারের দিক থেকে বিবেচনা করলে ভালই ছিল। একত মজার খাবার, তার উপর নিজেদের হাতে রান্না! মুরগির রোষ্ট থেকে শুরু করে পোলাও পর্যন্ত সবি ছিল অফিস মেইড। ওয়েব-সাইট আর সফটোওয়ার ডেভেলপমেন্ট এর পাশাপাশি যে ফুড ডেভেলোপমেন্টেও যে আমাদের সবাই এক্সপার্ট তার একটা প্রমান রচনা করা হল। বন্ধু এবং অফিসের কলিগদের সাথে হোম মেইড ফুড পার্টি অনেক হয়েছে কিন্তু অফিস মেইড ফুড দিয়ে পার্টি এটাই প্রথম! আশা করি নেক্সট টাইম ইনভাইট করতে ভুল হবে না, সবাই কে ইনভাইট করেই  পার্টি করব! আজকে যে সকল ফুড ডেভেলোপমেন্ট…

Read More
আজকে হাফ ডে বাসায় ছিলাম, দুপুরে খাবারের পর অফিসে আসলাম। কিন্তু অদ্ভুত ব্যপার হচ্ছে আজকেই খুব বেশীই বেশি ক্লান্ত লাগছে। মনে হচ্ছে বহু যুগ ধরে অফিসে বসে আছি। আবার থেমে থেমে মাথাও ব্যাথা করছে। এক্সক্লুসিভ স্ট্যাটাস ফেসবুক ফলোয়ার ফেসবুক স্ট্যাটাস ভালবাসার স্ট্যাটাস 

নাহ অফিসে চলে যাই, আবার বাংলাদেশের ব্যাটিং দেখমু। এখন আর না।

নাহ অফিসে চলে যাই, আবার বাংলাদেশের ব্যাটিং দেখমু। এখন আর না।   । । Text Source : Mehedi Menafa‘s Facebook Status       ফেসবুক স্ট্যাটাস Bangla স্ট্যাটাস Facebook কালেকশন ইংলিশ স্ট্যাটাস এক্সক্লুসিভ স্ট্যাটাস ফানি স্ট্যাটাস ফেসবুক ফলোয়ার ভালবাসার স্ট্যাটাস ভয়ংকর স্ট্যাটাস স্ট্যাটাস কৈশল       Bangla স্ট্যাটাস,  ফেসবুক স্ট্যাটাস,  Bangla স্ট্যাটাস,  Facebook কালেকশন,   ইংলিশ স্ট্যাটাস,   এক্সক্লুসিভ স্ট্যাটাস,  ফানি স্ট্যাটাস,   ফেসবুক ফলোয়ার,  ভালবাসার স্ট্যাটাস,  ভয়ংকর স্ট্যাটাস,  স্ট্যাটাস কৈশল , Facebook কালেকশন, FB Symbols, Funny স্ট্যাটাস,  status লিখতে,  আজব স্ট্যাটাস,  ইংলিশ স্ট্যাটাস,  এক্সক্লুসিভ স্ট্যাটাস,  ফানি স্ট্যাটাস,  ফেসবুক ফলোয়ার, ভালবাসার স্ট্যাটাস, …

Read More
ecommerce website design and development from bangladesh ফেসবুক ফলোয়ার ফেসবুক স্ট্যাটাস ভালবাসার স্ট্যাটাস 

আগামীকাল সকাল ৯.৩০ এ গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে শ্রীলংকার সাথে লড়বে টাইগাররা।

 আগামীকাল সকাল ৯.৩০ এ গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে শ্রীলংকার সাথে লড়বে টাইগাররা।  টাইগারদের জন্য রইল শুভ কামনা! আশা করি কাল টাইগাররা ভাল খেলে জিতবে।  আগামীকাল সকাল ৯.৩০ এ গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে শ্রীলংকার সাথে লড়বে টাইগাররা।  Mehedi Menafa shared Muhammad Mehedi Menafa’s photo. Source: Mehedi Menafa’s Facebook Status । । Text Source : Mehedi Menafa‘s Facebook Status ফেসবুক স্ট্যাটাস Bangla স্ট্যাটাস Facebook কালেকশন ইংলিশ স্ট্যাটাস এক্সক্লুসিভ স্ট্যাটাস ফানি স্ট্যাটাস ফেসবুক ফলোয়ার ভালবাসার স্ট্যাটাস ভয়ংকর স্ট্যাটাস স্ট্যাটাস কৈশল     Bangla স্ট্যাটাস,  ফেসবুক স্ট্যাটাস,  Bangla স্ট্যাটাস,  Facebook কালেকশন,   ইংলিশ স্ট্যাটাস,   এক্সক্লুসিভ স্ট্যাটাস,  ফানি স্ট্যাটাস,   ফেসবুক…

Read More
ঈদের শুভেচ্ছা এবং কিছু ঈদ কার্ড ইসলামের পথ ফেসবুক ফলোয়ার ফেসবুক স্ট্যাটাস 

ঈদের খুশি – ঈদের রাতের কবিতা! (Eid’s Poem)

ঈদের খুশি – ঈদের রাতের কবিতা! (Eid’s Poem) রাত থম্ থম্ রাতের শেষে সকাল যখন হবে মনের মাঝে ঈদের খুশি জমাট বেঁধে রবে। ঈদের খুশি ঈদের খুশি বাঁকা চাঁদের হাসি ফিরনি কাবাব পায়েস সেমাই দেব রাশি রাশি। ঈদের খুশি সকাল বিকাল ঈদের খুশি রাতে নতুন জামা নতুন কাপড় পরবো সবাই প্রাতে। ঈদের খুশি বাড়ি বাড়ি ঈদের খুশি মাঠে ঈদের খুশি শহর গঞ্জে ঈদের খুশি হাটে। ঈদের খুশি ছেলে বুড়োর ঈদের খুশি নানার ঈদের খুশি গরিব দুঃখীর দুঃখ কথা জানার। ঈদের খুশি উদার আকাশ ঈদের খুশি দানের ঈদের খুশি  দু’হাত ভরে…

Read More